মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
হাইমচরে ২ টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ১০ জন, সদস্য পদে ৬৫ ও সংরক্ষিত নারী আসনে ১৭ জনের সকল ক্ষেত্রে কার্যকর জবাবদিহিতা ও স্থানীয় সরকার ইএলজি প্রকল্পের গণশুনানী। হাইমচরে ইএলজি প্রকল্পের আওতায় শিক্ষার্থীদের সাথে উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের সংলাপ। হাইমচরে নারী নির্যাতন বিরোধী সভা প্রতিবন্ধীদের জীবনমান উন্নয়নে সরকার অঙ্গীকারাবদ্ধ আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস আজ সেনাবাহিনী সর্বোচ্চ নিষ্ঠা-আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে দেশসেবায় সেনাবাহিনীর গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে: রাষ্ট্রপতি বিশ্বের ১৮ দেশে পালিত হবে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস ইউপি নির্বাচন: ২৩ ডিসেম্বরের ভোট হবে ২৬ ডিসেম্বর

দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতারে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিবিরোধী দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতার করতে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান চালানো হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের করিমপুর কসবা মাঝিপাড়ায় অগ্নিসহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর কাছে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় আজ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা হিন্দু সম্প্রদায়ের পাশে দাঁড়িয়েছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, সারাদেশে আমরা আজ বিক্ষোভ ও শান্তি সমাবেশের ডাক দিয়েছি, কয়েক ঘণ্টার আহ্বানে ঢাকায় লাখ লাখ মানুষের সমাবেশ হয়েছে। অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।

ড. হাছান বলেন, এদেশ আমাদের সবার। সব ধর্মের মানুষের মিলিত রক্তস্রোতের বিনিময়ে আমাদের বাংলাদেশ রচিত হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা পেয়েছি স্বাধীনতা। কিন্তু একটি পক্ষ স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিল এবং তাদের ভাবাদর্শের পরবর্তী প্রজন্ম এখনো রাজনীতির নামে অপরাজনীতি করে। আর বিএনপি-জামায়াত হচ্ছে সেই অপরাজনীতির সবচেয়ে বড় পৃষ্ঠপোষক।

তিনি বলেন, এদেশে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ বা খ্রিস্টানরা সহিংসতা করে না, যারা সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করে, হিন্দুদের ভোটকেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়, ভোটের সময় ভারতবিরোধী স্লোগান দেয়, সেই বিএনপি-জামাতসহ ধর্মান্ধ গোষ্ঠীই মাঝেমধ্যে এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে বা রটিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চায়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ মনে করে- আমাদের প্রথম পরিচয় আমরা বাঙালি, দ্বিতীয় পরিচয় আমাদের ধর্ম। আর বিএনপি-জামায়াতের কাছে প্রথম পরিচয় ধর্ম আর দ্বিতীয় পরিচয় বাঙালি না বাংলাদেশি সেটা নিয়ে বিভ্রান্তি।

মন্ত্রী বলেন, একাত্তর সালের আগে যারা ডাকাতি করতো তারা রাজাকারে ভর্তি হয়েছিল, আর এখন বিএনপি তারাই করে যারা পেট্রোল বোমা আর আগুন দিয়ে মানুষ, গবাদিপশু, ঘরবাড়ি, যানবাহন পোড়ায়।

তথ্যমন্ত্রী এসময় পীরগঞ্জ সফরকারী স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী, জেলা প্রশাসন ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের দেওয়া সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন এবং দলের পক্ষ থেকে নিজেও ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে অর্থ ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

এসময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজউদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু ও জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদী হাসান রনিসহ স্থানীয় নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব