শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০২:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

নারীর মানবাধিকার রক্ষায় আপোষহীন কাজ করে যেতে চাই- রেখা সাহা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এর কেন্দ্রীয়-আর্ন্তজাতিক সম্পাদক রেখা সাহা বলেছেন,

আজ ৮ মার্চ। বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের নারীসমাজকে আমরা আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। এ বছরের নারী দিবসে জাতিসংঘের স্লোগান ‘নারীর সমতা সকলের প্রগতি’। নারীর প্রতি সব রকম বৈষম্য ও অন্যায়-অবিচারের অবসান ঘটিয়ে একটি সুখী, সমৃদ্ধ ও গণতান্ত্রিক বিশ্ব গড়ার কাজে পুরুষের সমান অবদান রাখার প্রত্যয় নিয়ে নারীর এগিয়ে চলা আরও বেগবান হোক।
এ দিবসটি এক শতাব্দী-প্রাচীন আন্তর্জাতিক দিবস। ১৯০৯ থেকে ১৯১১ সালের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক, জার্মানি ও সুইজারল্যান্ডে সূচিত এই দিবস পরে সোভিয়েত ইউনিয়ন, চীনসহ পূর্ব ইউরোপের সমাজতান্ত্রিক দেশগুলোতে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার সঙ্গে উদ্যাপিত হয়। জাতিসংঘ দিবসটি উদ্যাপন শুরু করে ১৯৭৫ সাল থেকে। এখন আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপিত হয় বিশ্বের প্রায় সব দেশেই।

নারীশক্তি ছাড়া এ জগৎ সত্যিই অকল্পনীয়! নারী আমাদের প্রত্যেকের অন্যতম অনুপ্রেরণার উৎস। সে রাঁধে, সে চুলও বাঁধে! নিজের হাজারো কাজের মাঝেই যত্ন নিয়ে পরিবারের খেয়াল রাখে সে। নারীর সেই ক্ষমতা এবং তাঁর অধিকার রক্ষার জন্য গোটা বিশ্বজুড়েই পালিত হয় আন্তর্জাতিক নারী দিবস।

সৃজন বাংলা ৫২ টিভি: নারী দিবস নিয়ে আপনি কী ভাবেন?

রেখা সাহা  : নারী দিবস শুধু বছরের একটি দিন কেন হবে, আমার কাছে প্রতিটা দিনই নারী দিবস মনে করি!প্রতিটি নারীর নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফল হওয়ার জন্য প্রতিদিনই সবার সহযোগিতাই প্রয়োজন। এরমানে এই না যে, নারীরা পুরুষদের সহযোগিতা ছাড়া এগোতেই পারবেনা। আবার এমন ও না যে, পুরুষদের সহযোগিতা ছাড়াই তারা একক ভাবে এগিয়ে যাবে। একজন পুরুষের উন্নতির পেছনে যেমন ভাবে নারীর সহযোগিতা থাকে, তেমনি ভাবে একজন নারীর উন্নয়নের পথেও পুরুষদের সহযোগিতা প্রয়োজন। সেটা হতে পারে বাবা, ভাই, বন্ধু, সহকর্মী বা অন্য যে কেউ। নারীদের বিষয় নিয়ে কথা বলা বা তাদের অধিকার নিয়ে সবাই কে আরো বেশি সচেতন করার জন্য যদিও একটি দিনকে নির্ধারণ করা হয়েছে, কিন্তু আমার মনে হয় এটার জন্য একটা দিনই শুধু নারীদের জন্য নির্দিষ্ট রাখা উচিতনা। নারী উন্নয়নে আমার আরো বেশি করে কাজ করবো। সরকার কে সহযোগীতা করবো দেশ উন্নয়নে । নারীর মানবাধিকার রক্ষায় আপোষহীন কাজ করে যেতে চাই।

সৃজন বাংলা ৫২ টিভি: আপনার দৃষ্টিতে নারীদের অগ্রগতি কতটা হয়েছে?

রেখা সাহা  : আমর চারপাশে আমি অনেক নারীকেই দেখছি, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ নারীর মানবাধিকার, নারী শিক্ষা ও কু-সংস্কার প্রতিরোধে কাজ করছি। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী উন্নয়ন নারী/পুরুষ বৈষম্য দূর করণে অগ্রনী ভূমিকা রেখেছেন।  যার কারনে আজ নারীরা অনেক বড় পর্যায়ে কাজ করছেন। এখন ভালো ফলাফল সহ অনেক মেয়ে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করছে। ফলে কাজের ক্ষেত্রে এন্ট্রি লেভেলে আমরা অনেক মেয়েকে পাচ্ছি।রাজনীতি, অর্থনীতি, বিনোদন, শিক্ষা সকল ক্ষেত্রে আজ নারীরা অনেক এগিয়ে আছেন।  অনেক কোম্পানির সিইও,  সিএফও থেকে শুরু করে বোর্ড অব ডিরেক্টরেও নারীরা রয়েছেন। সবমিলিয়ে বলা যায়,  নারীরা চ্যালেঞ্জটা নিতে পারছেন, তারা জ্যেষ্ঠ পদগুলোতে যেতে পারছেন। তবে এটা ঠিক, বিয়ের পর বা সন্তান নেয়ার পর অনেক নারীই নিজের কাজ একটি নির্দিষ্ট সীমার মধ্যে রেখে দেন, যাতে তার পরিবারে আরো একটু বেশি সময় দিতে পারেন। অনেক ক্ষেত্রে তারা চাকরিও ছেড়ে দিচ্ছেন। এটা অবশ্য অবস্থানগত কারণে নিজস্ব পছন্দেরও একটা ব্যাপার থাকে। আমি যে সময়ে চাকরি করতে শুরু করেছি, সে সময়ের তুলনায় বলতে গেলে এখন অনেক বেশি নারী কর্মক্ষেত্রে আসছেন। পড়ালেখার ব্যাপারেও আমাদের দেশের মেয়েরা এখন অনেক বেশি সচেতন, তারা অনেক উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করছে। নিজেদের এই পরিশ্রম বেশির ভাগ মেয়েই কাজে লাগাচ্ছে,  সেটা চাকরি করেই হোক কিংবা নিজের স্বাধীন ব্যাবসার ক্ষেত্রেই হোক। এটাকে আমি অবশ্যই সাধুবাদ জানাই।

সৃজন বাংলা ৫২ টিভি : আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আমাদের সময় দেওয়ার জন্য !

রেখা সাহা : ধন্যবাদ সৃজন বাংলা ৫২ টিভির পরিবারকে !


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব