বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শান্তি,শৃঙ্খলা ,সম্পীতিও দূর্নীতি মুক্ত মাগুরা পৌরসভা গড়তে চাই। ধর্ম নিয়ে কটূক্তি,দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের দাবিতে বিক্ষোভ। জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত! দক্ষিণ সুনামগঞ্জে আপন দূলাভাই কর্তৃক ১১ বছরের শ্যালিকা ধর্ষিতা সে সাত মাসের অন্তঃসত্তা! সুধারামে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক সন্তানের জননীকে ধর্ষণ, থানায় মামলা দায়ের! সুনামগন্জের দোয়ারাবাজারে এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টা! মহানবী (সা.) কে অবমাননা: কুয়েতের পর এবার ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে কাতার ! সমাজ কল্যাণ মূলক কার্যক্রম উপলক্ষ্যে মাদারীপুরে “শান্তির পথে সমিতির” মত বিনিময় সভা! একজন শিক্ষা গুরুরত্নের মৃত্যু খলিফারহাট অঞ্চলে শোকের চায়া! নোয়াখালীর প্রবীণ সাংবাদিক আহসান উল্যাহ মাষ্টারের ইন্তেকাল

হঠাৎ গ্রেপ্তার হলে কি করবেন?

সম্পাদকীয় -আল আমিন সোহাগ : বিনা ওয়ারেন্ট অথবা নোটিশ না দিয়ে পুলিশ আপনাকে গ্রেফতার করতে পারে না। (CrPC act 54 ব্যতীত) গ্রেফতারের সময় আপনাকে গ্রেফতারের কারণ, গ্রেফতারকারী অফিসারের নাম, গ্রেফতারের সময় ও স্থান সম্পর্কিত একটি মেমো পুলিশ আপনাকে বা আপনার বাড়ির লোককে দিতে বাধ্য। এই জিনিসটি অবশ্যই চেয়ে নেবেন। মামলার ক্ষেত্রে এটির গুরুত্ব অপরিসীম।

গ্রেফতার করার 24 ঘন্টার মধ্যে পুলিশ আপনাকে ম্যাজিষ্ট্রেটের সামনে হাজির করতে বাধ্য এবং ম্যাজিষ্ট্রেটের অনুমতি ছাড়া আর একদিনও আপনাকে অতিরিক্ত আটকে রাখতে পারে না। কোর্ট ছুটি থাকলে সেক্ষেত্রে ম্যাজিষ্ট্রেটের আবাসিক এ আপনাকে হাজির করাতে হবে।মহিলা পুলিশ ছাড়া কোনওভাবেই কোনও মহিলাকে গ্রেফতার বা তল্লাশী চালানো যায় না।আইন অনুযায়ী পুলিশ লক আপে আপনাকে কোনওপ্রকার শারীরিক বা মানসিক অত্যাচার করতে পারে না। এমনকি চড় মারতেও পারে না।

এবার জেনে নিন কীভাবে পুলিশ আপনাকে হয়রানি করতে পারে ও এক্ষেত্রে কী করবেন-সাধারণ ভাবে সরকারবিরোধী, শাসক দল বিরোধী কোনও পোষ্টের জন্য পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারে না। কারণ বাক স্বাধীনতার অধিকার আমাদের সংবিধানে স্বীকৃত। কিন্তু পুলিশ মামলা দায়ের করে অন্য ধারায়। আপনি পুলিশী হয়রানির শিকার হতে পারেন।

যদি আপনি আপনার ফেসবুক পোস্টে (ক) অশ্লীল কোনো শব্দ ব্যবহার করেন

(খ) ভিত্তিহীন গুরুতর অভিযোগ করেন (গ) চরিত্রহনন করেন।এই সমস্ত বিষয়গুলি তাই এড়িয়ে চলুন। স্বেচ্ছায় পুলিশের হাতে অস্ত্র তুলে দেবেন না।স্থানীয় রেপুটেড কোনো ক্রিমিন্যাল ল’ইয়ার, স্থানীয় মানবাধিকার আন্দোলনকর্মী এবং মিডিয়ার ফোন নাম্বার হাতের কাছে রাখুন।

কোনও ব্যক্তি পুলিশি হয়রানির শিকার হচ্ছেন জানতে পারা মাত্র তার পাশে দাঁড়ান। সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে খবরটি ছড়িয়ে দিন।এবিষয়ে বিজ্ঞ আইনজীবিদের আরও পরামর্শ সহযোগিতা নেয়া যেতে পারে। গন সচেতনতা তৈরিতে সহয়তা করুন।মনে রাখবেন, আপনার সচেতনতাই পারে আপনাকে সুস্থ রাখতে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব