বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১২:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ আর নেই! প্রাবন্ধিক সৈয়দ আবুল মকসুদ আর নেই! পিলখানা হত্যাকাণ্ড : শহীদদের স্মরণে দোয়া মাহফিল কাল! গৃহায়ন প্রকল্প-হাউজিং প্রজেক্ট বন্ধের নির্দেশ তাপসের! ছাতকের আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান সাহেলকে কারাগারে প্রেরণ করেছে আদালত! নোয়াখালীতে জবাই করে স্ত্রীকে হত্যা করলো প্রাসন্ড স্বামী! ছাতকে ব্যাংক কর্মকর্তা এখলাছুর রহমান আশরাফীর মরদেহ উদ্ধার । নোয়াখালীতে সাংবাদিক মুজাক্কির খুনের ঘটনায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা নোয়াখালীর চাপরাশির হাটে গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কীর’র মৃত্যুর ঘটনায় অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে পরিবার। সন্দ্বীপে জেলা প্রশাসকের বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার উদ্ভোদন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত !

ট্রাম্প চাইলেও করোনাকালীন নিষেধাজ্ঞা আরোপ থেকে সরছেন না বাইডেন!

ডেক্স নিউজ: করোনাকালীন ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার ক্ষেত্রে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিপরীতে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দেশটির নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) বাইডেনের মুখপাত্র জেন সাকি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বলে খবর প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

এর আগে গত সোমবার (১৮ জানুয়ারি) করোনাকালীন ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাসহ বিভিন্ন বিধি-নিষেধ আগামী ২৬ জানুয়ারি থেকে তুলে নেওয়ার আদেশে সই করেন ট্রাম্প। 

জেন সাকি এক টুইটে জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের পরামর্শ মেনে আগামী ২৬ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাষ্ট্র করোনাকালীন বিধি-নিষেধ তুলে নেবে না।

তিনি জানান, মহামারি আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে। বিশ্বব্যাপী নতুন ধরনের সংক্রমণের ব্যাপকতা বাড়ছে। তাই আন্তর্জাতিক যোগাযোগ বা ভ্রমণের ক্ষেত্রে আরোপিত সতর্কতামূলক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার উপযুক্ত সময় এটা নয়। 

২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হলেই বাইডেনের আদেশ কার্যকর হবে। 

গত সপ্তাহে দেশটির রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের প্রধান একটি নির্দেশনায় সই করেন, যেখানে বলা হয়েছিল আন্তর্জাতিক সীমানা অতিক্রমের ক্ষেত্রে অবশ্যই করোনা নেগেটিভ সনদ লাগবে। তবে, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলেননি তিনি।

গত মধ্য মার্চ থেকে ইউরোপের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ট্রাম্প প্রশাসন আর ব্রাজিলের নাগরিকদের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞা আসে মে মাসে। 

সাকি জানান, আমরা আসলে আমাদের দেশের নাগরিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়ে আরও কঠোর ও যত্নশীল হতে চাই। এজন্যই আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখে করোনার সংক্রমণকে প্রতিহত করতে চাই। 

মার্কিন প্রশাসনের অনেক কর্মকর্তা কয়েক মাস ধরেই নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়ার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে আসছিলেন। তাদের বক্তব্য, নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখা আসলে তেমন কোন কাজে আসবে না কারণ, অনেকই দেশই ভিনদেশিদের প্রবেশের ব্যাপারে কড়াকড়ি থেকে সরে এসেছে।

আবার একদল কর্মকর্তার দাবি, আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সরে আসা ঠিক হবে না। কারণ, ইউরোপের অনেক দেশই মার্কিন নাগিকদের প্রবেশের ক্ষেত্রে সতর্কতামূলক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব